ই- পাসপোর্ট এর নমুনা, :সূত্র : উইকিপেডিয়া

মাত্র দুই দিনে পাসপোর্ট হাতে পাবেন

বর্তমানে ঢাকার আগারগাঁও , যাত্রাবাড়ী ও উত্তরা সহ বাংলাদেশের প্রত্যেকটি জেলাতেই ই -পাসপোর্ট এর জন্য আবেদন করা যাবে | খুব সহজেই আপনি অনলাইনে ই-পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে পারবেন , এমনকি আপনি মাত্র দুইদিনেই আপনার পাসপোর্ট হাতে পেতে পারেন | খুব মনোযোগ দিয়ে লেখাটি পড়ুন , তাহলে আপনি বুঝতে পারবেন যে কিভাবে আপনি খুব সহজেই আপনার ই -পাসপোর্টটি তাড়াতাড়ি পেতে পারেন| বর্তমানে আমাদের দেশে ৪ ধরণের ই -পাসপোর্ট চালু আছে |
১. ৫ বছর মেয়াদি ৪৮ পৃষ্ঠার পাসপোর্ট |
২. ৫ বছর মেয়াদি ৬৪ পৃষ্ঠার পাসপোর্ট |
৩. ১০ বছর মেয়াদি ৪৮ পৃষ্ঠার পাসপোর্ট |
৪. ১০ বছর মেয়াদি ৬৪ পৃষ্ঠার পাসপোর্ট|

আপনি মাত্র ৩ টি ধাপ সম্পূন করলেই হাতে পাবেন আপনার ই -পাসপোর্ট :
১ম ধাপে আপনাকে অনলাইনে একটি ফর্ম পূরণ করতে হবে , যা কিনা খুবই সহজ | আপনার অনলাইনে এই epassport.gov.bd/onboarding ঠিকানায় গিয়ে মাত্র ৫ মিনিটেই এই ফর্ম পূরণ করতে পারবেন | এই ফর্ম পূরণ করলে আপনাকে আপনার ছবি বা জাতীয় পরিচয় পত্র বা জন্ম নিবন্ধন কোনোটাই সত্যায়িত করার প্রয়োজন নাই | বর্তমানে সাধারণ নাগরিকদের সত্যায়িত করার নাম যে হয়রানি হতে হয় , সেই ঝামেলা হতে আপনি পুরাপুরি মুক্ত হতে পারবেন |

২য় ধাপে আপনাকে ব্যাংকে গিয়ে পাসপোর্টের ফি জমা দিতে হবে | আপনি বাংলাদেশের যে কোনো জায়গা থেকে নিচের যে কোনো একটি ব্যাংকের শাখা অথবা এজেন্ট ব্যাঙ্কিং থেকে পাসপোর্ট এর ফি জমা দিতে পারবেন | ব্যাঙ্ক গুলো নিম্নরূপ:
১. ওয়ান ব্যাঙ্ক ২. প্রিমিয়ার ব্যাঙ্ক ৩. সোনালী ব্যাঙ্ক
৪. ট্রাস্ট ব্যাঙ্ক ৫. ব্যাঙ্ক এশিয়া ৬. ঢাকা ব্যাঙ্ক
আপনাকে কত টাকা ফি জমা করতে হবে তা নির্ভর করবে যে আপনি কোন ধরণের পাসপোর্ট কত তাড়াতাড়ি পেতে চান , পাসপোর্ট ফি গুলো নিচে দেওয়া হলো:

১. ৫ বছর মেয়াদি ৪৮ পৃষ্ঠার পাসপোর্ট:
আপনি যদি ১৫ কার্য দিবসের মধ্যে পেতে চান তাহলে আপনাকে জমা দিতে হবে মাত্র ৪০২৫ টাকা (এই টাকার মধ্যে ট্যাক্স অন্তর্ভুক্ত)
আপনি যদি ৭ কার্য দিবসের মধ্যে পেতে চান তাহলে আপনাকে জমা দিতে হবে মাত্র ৬৩২৫ টাকা (এই টাকার মধ্যে ট্যাক্স অন্তর্ভুক্ত)
আপনি যদি ২ কার্য দিবসের মধ্যে পেতে চান তাহলে আপনাকে জমা দিতে হবে মাত্র ৮৬২৫ টাকা (এই টাকার মধ্যে ট্যাক্স অন্তর্ভুক্ত)

২. ৫ বছর মেয়াদি ৬৪ পৃষ্ঠার পাসপোর্ট
আপনি যদি ১৫ কার্য দিবসের মধ্যে পেতে চান তাহলে আপনাকে জমা দিতে হবে মাত্র ৬৩২৫ টাকা (এই টাকার মধ্যে ট্যাক্স অন্তর্ভুক্ত)
আপনি যদি ৭ কার্য দিবসের মধ্যে পেতে চান তাহলে আপনাকে জমা দিতে হবে মাত্র ৮৬২৫ টাকা (এই টাকার মধ্যে ট্যাক্স অন্তর্ভুক্ত)
আপনি যদি ২ কার্য দিবসের মধ্যে পেতে চান তাহলে আপনাকে জমা দিতে হবে মাত্র ১২০৭৫ টাকা (এই টাকার মধ্যে ট্যাক্স অন্তর্ভুক্ত)

৩. ১০ বছর মেয়াদি ৪৮ পৃষ্ঠার পাসপোর্ট
আপনি যদি ১৫ কার্য দিবসের মধ্যে পেতে চান তাহলে আপনাকে জমা দিতে হবে মাত্র ৫৭৫০ টাকা (এই টাকার মধ্যে ট্যাক্স অন্তর্ভুক্ত)
আপনি যদি ৭ কার্য দিবসের মধ্যে পেতে চান তাহলে আপনাকে জমা দিতে হবে মাত্র ৮০৫০ টাকা (এই টাকার মধ্যে ট্যাক্স অন্তর্ভুক্ত)
আপনি যদি ২ কার্য দিবসের মধ্যে পেতে চান তাহলে আপনাকে জমা দিতে হবে মাত্র ১০৩৫০ টাকা (এই টাকার মধ্যে ট্যাক্স অন্তর্ভুক্ত)

৪. ১০ বছর মেয়াদি ৬৪ পৃষ্ঠার পাসপোর্ট
আপনি যদি ১৫ কার্য দিবসের মধ্যে পেতে চান তাহলে আপনাকে জমা দিতে হবে মাত্র ৮০৫০ টাকা (এই টাকার মধ্যে ট্যাক্স অন্তর্ভুক্ত)
আপনি যদি ৭ কার্য দিবসের মধ্যে পেতে চান তাহলে আপনাকে জমা দিতে হবে মাত্র ১০৩৫০ টাকা (এই টাকার মধ্যে ট্যাক্স অন্তর্ভুক্ত)
আপনি যদি ২ কার্য দিবসের মধ্যে পেতে চান তাহলে আপনাকে জমা দিতে হবে মাত্র ১৩৮০০ টাকা (এই টাকার মধ্যে ট্যাক্স অন্তর্ভুক্ত)

৩য় ধাপে আপনাকে নিম্ন বর্ণিত কাগজগুলি নিয়ে আপনি যেই জেলাতে আবেদন করবেন সেই জেলার পাসপোর্ট অফিসে যেতে হবে| যাওয়ার সময় যেসব কাগজ পত্র সাথে নিতে হবে :
১।অনলাইনে করা আবেদনপত্রের প্রিন্ট কপি
২। জাতীয় পরিচয় পত্র/ জন্ম নিবন্ধন এর কপি
৩। ব্যাংকে জমাকৃত স্লিপ
৪। পূর্ববর্তী পাসপোর্ট এর ১ম পাতার কপি (যদি আপনার কোনো পাসপোর্ট থেকে থাকে )

৩য় ধাপ সম্পর্ণ করার পর পাসপোর্ট অফিসে থেকে আপনাকে একটি স্লিপ প্রদান করা হবে , যেটি দেখিয়ে আপনি নিদৃষ্ট তারিখে আপনার পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে পারবেন |
তবে সুপার এক্সপ্রেস ডেলিভারি পদ্ধতিতে যেখানে মাত্র দুই দিনে পাসপোর্ট ডেলিভারি দেওয়া হয় , সেটিতে দুইটি শর্ত প্রযোজ্য:
১. অবশ্যই আপনার পূর্ববর্তী পাসপোর্ট থাকতে হবে (এর অর্থ এই যে আপনার যদি পূর্বে MRP পাসপোর্ট করা থাকে তবেই আপনি মাত্র দুই দিনে ই -পাসপোর্ট করতে পারবেন )
২. সুপার এক্সপ্রেস ডেলিভারি পদ্ধতিতে আপনি আবেদন জেলা অফিসে করলেও , পাসপোর্টটি আপনাকে ঢাকা আগারগাঁও অফিসে থেকে সংগ্রহ করতে হবে |


লেখাটি ভালো লাগলে- লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করুন